মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪ , ৭.শ্রাবণ.১৪৩১

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৯:১৮, ৪ জানুয়ারি ২০২৪

নির্বাচনী প্রতীক নিয়ে লড়াইয়ে হার ইমরানের দলের

নির্বাচনী প্রতীক নিয়ে লড়াইয়ে হার ইমরানের দলের
সংগৃহীত

পেশোয়ারের উচ্চ আদালতের দ্বারস্ত হয়েও নিজেদের নির্বাচনী প্রতীক ‘ব্যাট’ ফিরে পেল না ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই)।

গত ২২ ডিসেম্বর পাকিস্তান নির্বাচন কমিশন পিটিআই এর আইকনিক নির্বাচনী প্রতীক ‘ব্যাট’ বাতিল করে। যার বিরুদ্ধে পেশোয়ার হাই কোর্টে গিয়েছিল দলটি। ২৬ ডিসেম্বর পেশোয়ার হাইকোর্ট নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছিল। যে আদেশের বিরুদ্ধে আবার আপিল করে নির্বাচন কমিশন। বুধবার পেশোয়ার হাইকোর্টের বিচারপতি এজাজ খান নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত পুনর্বহাল রাখার দায় দেন। ফলে শেষ পর্যন্ত সেখান থেকেও পিটিআই কে খালি হাতেই ফিরতে হলো।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানে জাতীয় নির্বাচন। নির্বাচনে অংশ নিতে দুইটি আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন কারাবন্দি ইমরান খান। কিন্তু উভয় আসনেই তার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে গেছে। এখন দলীয় প্রতীক বরাদ্দও বাতিল হয়ে যাওয়া পিটিআই এর জন্য নিশ্চিতভাবেই বড় ধাক্কা। কারণ, যদি দলটি আদালতের মাধ্যমে দলীয় প্রতীক বরাদ্দ পেতে ব্যর্থ হয় তবে জাতীয় এবং প্রাদেশিক নির্বাচনে তাদের স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অংশ নিতে হবে।

সেক্ষেত্রে ভোটে জিতে গেলেও তারা পিটিআই এর সদস্য হিসেবে জোট গঠন করতে পারবে না। কারণ, নিয়মানুযায়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীরা শুধুমাত্র নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত দলের সঙ্গে যুক্ত হতে পারবে।

রাষ্ট্রদ্রোহ, দুর্নীতিসহ একাধিক মামলায় অভিযুক্ত ইমরান খান এখন রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা কারাগারে আছেন। পাকিস্তানের সংবিধান অনুযায়ী কারাদণ্ডপ্রাপ্ত কেউ দেশটির সরকারি কোনো পদের দায়িত্ব নিতে পারবে না। এ কারণে পিটিআইকে নতুন নেতা বেছে নিতে হয়। দলের নতুন নেতা হন গহর আলী খান। তবে সংবিধান মেনে নির্বাচন হয়নি অভিযোগে গত ২২ ডিসেম্বর দলটির প্রতীক বাতিল করে নির্বাচন কমিশন।

যদি দলীয় প্রতীক উদ্ধার না হয় তবে পিটিআই নেতাদের উপর অন্যান্য দলে যোগ দেওয়ার চাপ বাড়তে পারে। দলত্যাগ ধারার অধীনে সেক্ষেত্রে তাদের আসন হারানোর ভয় নেই।

তবে এখনই দমে যাচ্ছে না পিটিআই। বুধবারের রায়ের বিরুদ্ধে তারা সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।