২৫ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, রবিবার ০৯ আগস্ট ২০২০ ইংরেজি, ৭:৪৫ অপরাহ্ণ
Find us on facebook Find us on twitter Find us on you tube RSS feed
প্রচ্ছদ আওয়ামী লীগ বিএনপি ধর্মভিত্তিক দল জাতীয় পার্টি বামদল অন্যান্য দল প্রশাসন জাতীয় সংসদ নির্বাচন কমিশন শ্রমিক রাজনীতি ছাত্র রাজনীতি
সারাদেশ নিরাপত্তা ও অপরাধ বিশ্ব রাজনীতি উন্নয়ন ও সংগঠন অন্যান সংবাদ প্রবাস সাক্ষাতকার বই মতামত ইতিহাস অর্থনীতি
19 May 2017   07:51:46 PM   Friday BdST A- A A+ Print this E-mail this

দ্বিগুণ হচ্ছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সম্মানী

নিজস্ব প্রতিবেদক
পলিটিক্সবিডি.কম
 দ্বিগুণ হচ্ছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সম্মানী

স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধিদের সম্মানি বাড়াছে। দ্বিগুণের বেশি ভাতা বাড়ছে সিটি কর্পোরেশন মেয়র ও কাউন্সিলররা মাসিক সম্মানী। আর তা কার্যকর হচ্ছে ১ জুলাই থেকে। অর্থমন্ত্রীর টেবিলে এখন ওই প্রস্তাব। তার অনুমোদন পেলেই স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় তা কার্যকর করবে। ইতিমধ্যে মেয়রদের ভাতা বর্তমানের ৪৪ হাজার ৫০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৮৫ হাজার টাকা করা হয়েছে। কাউন্সিলররা পাবেন বর্তমানের ১৭ হাজার ৫০০ টাকার জায়গায় ৩৫ হাজার টাকা। পাশাপাশি উপজেলা চেয়ারম্যান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, পৌরসভা মেয়র ও কাউন্সিলরের সম্মানী ভাতাও কমবেশি দ্বিগুণ হচ্ছে। অর্র্থ মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, বিগত ২০১২ সালে স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধিদের সম্মানী এক দফা বাড়ানো হয়েছিল। তারপর আর বাড়ানো হয়নি। পরবর্তী সময়ে স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে ভাতা বাড়ানোর প্রস্তাব আসে। অর্থ মন্ত্রণালয় তা পর্যালোচনা করে গত ৯ জানুয়ারি জনপ্রতিনিধিদের সম্মানী নতুনভাবে নির্ধারণ করে। কিন্তু স্থানীয় সরকার বিভাগ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, সদস্য, পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলরদের সম্মানী আরো বাড়ানোর সুপারিশ করে। ফলে সব ধরনের ভাতা আবার পুনর্বিবেচনা করতে মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাব বিবেচনায় আনে অর্থ মন্ত্রণালয়। তারপর নতুনভাবে বিভিন্ন স্তরে ভাতার হার বাড়িয়ে যাছাই-বাছাই শেষে তা চূড়ান্ত করা হয়।
সূত্র জানায়, নতুন সম্মানী ভাতা কাঠামোতে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানরা মাসিক সম্মানী পাবেন ৪০ হাজার টাকা। আগে ওই ভাতা ছিল ২০ হাজার ৫০০ টাকা। ভাইস চেয়ারম্যানের সম্মানী ১৪ হাজার ৫০০ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ২৭ হাজার টাকা। তবে অন্যান্য ভাতা আগের মতোই থাকবে। জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের মাসিক সম্মানী ২৭ হাজার ৫০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫৪ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে তাদের অ্যাপায়ন ভাতা ৩ হাজার টাকা বাতিল করা হয়। একইভাবে জেলা পরিষদের সদস্যদের মাসিক সম্মানী নির্ধারণ করা হয়েছে ২৫ হাজার টাকা। আগে ওই ধরনের কোনো পদ ছিল না। এই বছরই প্রথম ওই ধরনের পদ সৃষ্টি করে সম্মানী চূড়ান্ত করা হয়। তবে গত ৯ জানুয়ারির প্রস্তাবে সদস্যদের সম্মানী ৩৫ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছিল। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাব অনুসারে তা সংশোধন করে ২৫ হাজার টাকায় নামিয়ে আনা হয়। প্রস্তাবে ‘ক’ শ্রেণীর পৌরসভা মেয়র এবং কাউন্সিলরের সম্মানী দ্বিগুণ হারে বাড়ানো হয়েছে। নতুন কাঠামো অনুযায়ী মেয়রের সম্মানী ৪০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়। আগে তার পরিমাণ ছিল ২০ হাজার টাকা। একইভাবে কাউন্সিলরের সম্মানী চূড়ান্ত করা হয় ১০ হাজার টাকা। যা আগে ছিল ৫ হাজার টাকা। ‘খ’ শ্রেণীর পৌরসভা মেয়র এবং কাউন্সিলরের সম্মানী দ্বিগুণ হারে বেড়েছে। নতুন কাঠামোতে মেয়রের সম্মানী হচ্ছে ৩০ হাজার টাকা, আগে ছিল ১৫ হাজার টাকা। একইভাবে কাউন্সিলরের সম্মানীর হার নির্ধারণ করা হয়েছে ৮ হাজার টাকা, যা আগে ছিল ৪ হাজার টাকা। দ্বিগুণ হারে ‘গ’ শ্রেণীর মেয়র ও কাউন্সিলরের সম্মানীও বেড়েছে। নতুন কাঠামোতে মেয়রের সম্মানী নির্ধারণ করা হয় ২৪ হাজার টাকা। আগে পেতেন ১২ হাজার টাকা। একইভাবে কাউন্সিলরের সম্মানী হচ্ছে ৬ হাজার টাকা, আগে ছিল ৩ হাজার টাকা।
সূত্র আরো জানায়, ইতিপূর্বে ‘ক’ শ্রেণীর মেয়র ও কাউন্সিলরের সম্মানী যথাক্রমে ৩৮ হাজার টাকা এবং ৮ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছিল। একইভাবে ‘খ’ শ্রেণীর মেয়রের সম্মানী ২৮ হাজার টাকা ও কাউন্সিলরের ৭ হাজার টাকা এবং ‘গ’ শ্রেণীর মেয়র ও কাউন্সিলরের সম্মানীর পরিমাণ যথাক্রমে ২৪ হাজার টাকা ও ৬ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবে অর্থ মন্ত্রণালয় সম্মানীর হার আরো বাড়িয়েছে। তাছাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের সম্মানী ভাতা নতুনভাবে নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ হাজার টাকা। তার মধ্যে সরকারি অংশে পাবেন ৪ হাজার ৫০০ টাকা এবং ইউপি অংশে ৫ হাজার ৫০০ টাকা। আগে ওই সম্মানীর হার ছিল ৩ হাজার ৫০০ টাকা। একইভাবে নতুন কাঠামোতে ইউপি সদস্যদের সম্মানী চূড়ান্ত করা হয়েছে ৮ হাজার টাকা। তার মধ্যে সরকারি অংশে পাবেন ৩ হাজার ৬০০ টাকা এবং ইউপি অংশে ৪ হাজার ৪০০ টাকা। অবশ্য আগে এই সম্মানীর হার ছিল ২ হাজার টাকা। জনপ্রতিনিধিদের সম্মানি কাঠামো কার্যকরের সাথে সাথেই অর্থ বিভাগের রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান শাখা থেকে গত ৯ জানুয়ারি জারিকৃত স্মারক বাতিল বলে গণ্য হবে। স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে ওই সম্মানী ও অন্যান্য ভাতার বিষয়ে বিদ্যমান বিধিবিধান অনুসরণ করে প্রয়োজনীয় আদেশ জারি করবে। আর তার প্রয়োজনীয় ব্যয় সংশ্লিষ্ট জেলা পরিষদ, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ তহবিল থেকে নির্বাহ করা হবে।
এদিকে সম্মানি বাড়া প্রসঙ্গে বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাসোসিয়েশনের সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়ালিউর রহমান চৌধুরী বকুল জানান, ভাতার হার চূড়ান্ত করার আগে সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয় বৈঠক করেছে। বৈঠকে নারী সদস্যদের বিষয়ে কিছু সমস্যা থাকলেও আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হয়েছে। আশা করা যায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জন্য সরকার একটি বাস্তবসম্মত সম্মানী ঘোষণা দেবে।
অনস্যদিকে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন জানান, বিষয়টি চূড়ান্ত পর্যায়ে প্রক্রিয়াধীন আছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

প্রশাসন-এর সর্বশেষ

প্রচ্ছদ আওয়ামী লীগ বিএনপি ধর্মভিত্তিক দল জাতীয় পার্টি বামদল অন্যান্য দল প্রশাসন জাতীয় সংসদ নির্বাচন কমিশন শ্রমিক রাজনীতি ছাত্র রাজনীতি
সারাদেশ নিরাপত্তা ও অপরাধ বিশ্ব রাজনীতি উন্নয়ন ও সংগঠন অন্যান সংবাদ প্রবাস সাক্ষাতকার বই মতামত ইতিহাস অর্থনীতি

সম্পাদক : আবু জাফর সূর্য

কপিরাইট © 2020 পলিটিক্সবিডি.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত। Developed by eMythMakers.com