২ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ ইংরেজি, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ
Find us on facebook Find us on twitter Find us on you tube RSS feed
প্রচ্ছদ আওয়ামী লীগ বিএনপি ধর্মভিত্তিক দল জাতীয় পার্টি বামদল অন্যান্য দল প্রশাসন জাতীয় সংসদ নির্বাচন কমিশন শ্রমিক রাজনীতি ছাত্র রাজনীতি
সারাদেশ নিরাপত্তা ও অপরাধ বিশ্ব রাজনীতি উন্নয়ন ও সংগঠন অন্যান সংবাদ প্রবাস সাক্ষাতকার বই মতামত ইতিহাস অর্থনীতি
24 Jun 2017   02:04:38 PM   Saturday BdST A- A A+ Print this E-mail this

আবারও দেশসেবার সুযোগ দিন: শেখ হাসিনা

নিজস্ব প্রতিবেদক
পলিটিক্সবিডি.কম

আগামী নির্বাচনেও ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় রাখতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দলটির সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, আওয়ামী লীগের হাতে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি হচ্ছে। এই উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগকে আবারো সরকার গঠন করতে হবে। দেশবাসীকে বলবো, আওয়ামী লীগকে আবারও দেশসেবা করার সুযোগ দিন। আওয়ামী লীগের ৬৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে গতকাল শুক্রবার ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নতুন ভবনের ভিত্তিফলক উ‌ন্মোচন অনুষ্ঠানে বক্তব্যে এই আহ্বান জানান তিনি।
জুমাতুল বিদা এবং লাইলাতুল কদরের জন্য এবার সংক্ষিপ্ত কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করেছে দেশের অন্যতম প্রাচীন রাজনৈতিক দলটি।সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে ধানমণ্ডির ৩২ নম্বর সড়কে বঙ্গবন্ধু ভবন এবং বঙ্গবন্ধু এভিনিউসহ সারা দেশে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।  
সকালে ধানমণ্ডির ৩২ নম্বর সড়কে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হিসাবে ফুল দেয়ার পর সভানেত্রী দলীয় নেতাদের নিয়ে জাতির জনকের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।
শেখ হাসিনার সঙ্গে ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু ও তোফায়েল আহমেদ, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, সাহারা খাতুন ও মোশাররফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
এরপর বঙ্গবন্ধু এভিনিউর অনুষ্ঠানে যান শেখ হাসিনা। সকাল ১০টায় অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছেই দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের আনুষ্ঠানিক ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন শেখ হাসিনা। পরে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। পরিচালনা করেন দলের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।
অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহারা খাতুন, যুগ্ম-সম্পাদক ডা. দীপু মনি ও জাহাঙ্গীর কবির নানকসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগের হাতে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি হচ্ছে। এ উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগকে আবার সরকার গঠন করতে হবে। দেশবাসীকে বলব, আওয়মী লীগকে আবারও দেশসেবা করার সুযোগ দিন। আওয়ামী লীগ দেশের অগ্রগতি এনে দিয়েছে। দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। এটা কেবল আওয়ামী লীগই পারে। জাতি যেন তা মনে রাখে।’
নিজ দলের নেতা-কর্মীদের জাতির পিতার আদর্শের সৈনিক হিসেবে গড়ে ওঠার তাগিদও দেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘দেশের সেবা করুন, মানুষের সেবা করুন। কী পেলাম, কী পেলাম না: সেটি বড় কথা নয়। দেশকে, মানুষকে কী দিতে পারলাম; সেটিই বড় কথা।’
যারা বিভিন্ন সময়ে বঙ্গবন্ধুর সমালোচনা করেছিলেন, তাদের সমালোচনা করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘যারা তখন লিখেছিল বঙ্গবন্ধু সফল বিপ্লবী, দক্ষ সংগঠক, কিন্তু ভালো শাসক নন; তারা হয় স্বাধীনতাবিরোধী ছিল, না হয় স্বাধীনতা বিরোধীদের দোসর হিসেবে কাজ করেছিল।’
বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণে কাজ করে যাওয়ার কথাও বলেন তার মেয়ে শেখ হাসিনা।
বাংলাদেশকে ‘উদীয়মান সূর্য’ অভিহিত করে তিনি বলেন, ‘দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। কিন্তু আমি জানি, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে এখনও অনেক ষড়যন্ত্র চলছে। স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি, তাদের পদলেহনকারী ও দালালদের অভাব নেই। তারা ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে, তারা ষড়যন্ত্র করবেই।’
আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থেকে এই ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করতে বলেন সভানেত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ দেশকে স্বাধীন করেছে। স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু একটি স্বাধীন দেশের জন্য যা যা করা দরকার, করে গিয়েছিলেন। তিনি যদি আর পাঁচটি বছর বেঁচে থাকতে পারতেন, তাহলে তখনই বাংলাদেশ উন্নত, সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হত।’
দেশের প্রাচীনতম ও ঐতিহ্যবাহী দল আওয়ামী লীগের গৌরজ্জ্বল ইতিহাস তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগের ইতিহাসের সঙ্গে বাংলাদেশের ইতিহাস জড়িত। জাতি হিসেবে আমরা বিশ্বে আÍপরিচয়ের সুযোগ পেয়েছি। এই সুযোগ এনে দিয়েছে আওয়ামী লীগ।’
তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ এদেশের স্বাধীনতা এনে দিয়েছে। বাংলকে রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা দিয়েছে, দেশের শাসনতন্ত্র দিয়েছে। এদেশের যা কিছু অর্জন আওয়ামী লীগই এনে দিয়েছে। এই সংগঠনই বাংলাদেশকে অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রার পথ দেখাচ্ছে। আওয়ামী লীগ ও বাংলাদেশ একে অপরের পরিপূরক।’
শেখ হাসিনা বলেন, ‘এই বাংলাদেশকে আমরা উন্নত সমৃদ্ধ করবো। আওয়ামী লীগের হাতেই তা হবে। আওয়ামী লীগই পারবে, আওয়ামী লীগই পারবে। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে মধ্যম আয়ের দেশ। ২০৪১ সালের মধ্যে হবে দক্ষিণ এশিয়ার উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ। ২০২০ সাল আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ওই বছর আমরা জাতির পিতার জš§শতবার্ষিকী পালন করবো ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত দেশ হিসেবে।’
দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, এই কার্যালয় আমরা ভালোভাবে গড়ে তুলবো। কেননা আওয়ামী লীগ একটি প্রতিষ্ঠান। এই আওয়ামী লীগই বাংলাদেশকে পথ দেখাচ্ছে। দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। এই সংগঠন কেবল দেশকে এগিয়ে নেবে না, বিশ্বকেও পথ দেখাবে।
এদিকে আওয়ামী লীগের ৬৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় টুঙ্গীপাড়ায় চিরনিদ্রায় শায়িত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের একটি প্রতিনিধি দল শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন করে।
টুঙ্গীপাড়ার কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, শ্রম ও জনশক্তি বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য মুন্নুজান সুফিয়ান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আওয়ামী লীগ-এর সর্বশেষ

প্রচ্ছদ আওয়ামী লীগ বিএনপি ধর্মভিত্তিক দল জাতীয় পার্টি বামদল অন্যান্য দল প্রশাসন জাতীয় সংসদ নির্বাচন কমিশন শ্রমিক রাজনীতি ছাত্র রাজনীতি
সারাদেশ নিরাপত্তা ও অপরাধ বিশ্ব রাজনীতি উন্নয়ন ও সংগঠন অন্যান সংবাদ প্রবাস সাক্ষাতকার বই মতামত ইতিহাস অর্থনীতি

সম্পাদক : আবু জাফর সূর্য

কপিরাইট © 2019 পলিটিক্সবিডি.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত। Developed by eMythMakers.com