২ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ ইংরেজি, ২:২৩ পূর্বাহ্ণ
Find us on facebook Find us on twitter Find us on you tube RSS feed
প্রচ্ছদ আওয়ামী লীগ বিএনপি ধর্মভিত্তিক দল জাতীয় পার্টি বামদল অন্যান্য দল প্রশাসন জাতীয় সংসদ নির্বাচন কমিশন শ্রমিক রাজনীতি ছাত্র রাজনীতি
সারাদেশ নিরাপত্তা ও অপরাধ বিশ্ব রাজনীতি উন্নয়ন ও সংগঠন অন্যান সংবাদ প্রবাস সাক্ষাতকার বই মতামত ইতিহাস অর্থনীতি
09 Apr 2017   03:16:33 AM   Sunday BdST A- A A+ Print this E-mail this

এক নজরে হাসিনা-মোদী শীর্ষ বৈঠক

ডেস্ক প্রতিবেদন
পলিটিক্সবিডি.কম
 এক নজরে হাসিনা-মোদী শীর্ষ বৈঠক

নয়া দিল্লিতে শীর্ষ বৈঠকে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ২২টি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। যদিও সংখ্যা নিয়ে দুই দেশের পক্ষ থেকে দুই ধরনের তথ্য এসেছে। বৈঠকে তিস্তা চুক্তি এগিয়ে আনাসহ সহযোগিতার নানা প্রতিশ্রুতিও। শনিবার ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে শীর্ষ বৈঠকে শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদী দুই দেশের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন।
   মোট ২২টি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, এর মধ্যে দুই প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে চারটি সমঝোতাপত্র বিনিময় হয়েছে।  তবে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক বলেছেন, এই সংখ্যা ৩৬।

   তৃতীয় লাইন অব ক্রেডিটের আওতায় বাংলাদেশকে সাড়ে ৪ বিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে ভারত। গত ছয় বছরে তা ৮ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হল।

   সামরিক কেনাকাটায় ৫০০ মিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে ভারত।

   বাংলাদেশ ও ভারত সরকারের মধ্যে প্রতিরক্ষা সহযোগিতা রূপরেখা’ সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক।

   ৩৬টি কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপনে সমঝোতা স্মারক।

   আরও সীমান্ত হাট চালু করতে সমঝোতা স্মারক।

   বাংলাদেশের বিচার বিভাগের কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণে সমঝোতা স্মারক।

   তিস্তার পানি বন্টন নিয়ে  কোনো সুরাহা না হলেও এই চুক্তি সম্পাদনে নতুন আশা দিয়ে নরেন্দ্র মোদী বলেছেন, এই সমস্যার জট কাটাতে দুই দেশের বিদ্যমান দুই সরকারই পারবে। তিস্তা চুক্তির আটকে থাকার জন্য দায়ী হিসেবে চিহ্নিত পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। তিস্তা চুক্তিসহ পদ্মা-গঙ্গা ব্যারেজ এবং অববাহিকা ভিত্তিক পানি ব্যবস্থাপনা নিয়ে মোদীর সঙ্গে আলোচনার কথা জানান শেখ হাসিনা।
তিনি বলেন,আমার ঐকান্তিক বিশ্বাস, এই সমস্যাগুলোর দ্রুত সমাধানে আমরা ভারতের সমর্থন পাব।

   ট্রেন-বাস উদ্বোধন: অনুষ্ঠানস্থল থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে খুলনা-কলকাতা ট্রেন, খুলনা-কলকাতা-ঢাকা বাস চলাচল উদ্বোধন করেন দুই প্রধানমন্ত্রী। রাধিকারপুর-বিরল রেললাইনও উদ্বোধন হয়। ভারত থেকে বাংলাদেশে আমদানির জন্য ২ হাজার ২০০ মেট্রিক টন ডিজেলের একটি চালানের আনুষ্ঠানিক যাত্রাও শুরু হয় এদিন।

   বিদ্যুৎ :আগের ৬০০ মেগাওয়াটের সঙ্গে আরও ৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ বাংলাদেশে রপ্তানির ঘোষণা দেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। ভবিষ্যতে আরও ৫০০ মেগাওয়াট দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দেন তিনি। এসময় স্থানীয় পাটের বাজার সুরক্ষায় বাংলাদেশ থেকে আমদানি করা পাট ও পাটজাত পণ্যে ভারতের আরোপ করা বাড়তি শুল্ক পুনর্বিবেচনার আশ্বাস মিলেছেন মোদী।

   বঙ্গবন্ধুর আতœজীবনী-সড়ক: দুই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদী যৌথভাবে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আতœজীবনীর হিন্দি সংস্করণ উন্মোচন করেন। অনুষ্ঠানে নয়া দিল্লির পার্ক স্ট্রিট ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রোড’ উদ্বোধন করেন তারা। বাংলাদেশের জাতির জনকের প্রশংসা করে তার কন্যা শেখ হাসিনাকে মোদী বলেন, আপনি সফলভাবে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ও পরমপরাকে ধারণ করে এগিয়ে যাচ্ছেন।

   ২৫ মার্চ গণহত্যা দিবসের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতিতে ভারতের সমর্থন পাওয়ার কথা জানিয়েছেন শেখ হাসিনা।

   ২০২০ সালে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং ২০২১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তিতে যৌথভাবে প্রামাণ্যচিত্র তৈরির ঘোষণাও আসে মোদীর কাছ থেকে।

   হাসিনার কর্মব্যস্ত দিন : সফরের দ্বিতীয় দিন শীর্ষ বৈঠকের পাশাপাশি টানা বেশ কয়েকটি কর্মসূচিতে অংশ নেন শেখ হাসিনা। সকালে রাষ্ট্রপতি ভবনে আনুষ্ঠানিক অভ্যর্থনা ও গার্ড অব অনার দেওয়া হয় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে। মোদী এসময় উপস্থিত ছিলেন।
   এরপর রাজঘাটে মহাত্মা গান্ধীর সমাধি সৌধে ফুল দেওয়ার পর তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর হায়দ্রাবাদ হাউজে যান। সেখানে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের পর মধ্যাহ্ন ভোজে অংশ নেন তিনি।
   বৈঠকের পর শেখ হাসিনা ও মোদী এক গাড়িতে চড়ে যান মানেকশ সেন্টারে, সেখানে একাত্তরে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদ ভারতীয় শহীদদের সম্মাননা জানানো হয়। এরপর সন্ধ্যায় ভারতের উপ-রাষ্ট্রপতি হামিদ আনসারীর সঙ্গে বৈঠক করেন হাসিনা।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

বিশ্ব রাজনীতি-এর সর্বশেষ

প্রচ্ছদ আওয়ামী লীগ বিএনপি ধর্মভিত্তিক দল জাতীয় পার্টি বামদল অন্যান্য দল প্রশাসন জাতীয় সংসদ নির্বাচন কমিশন শ্রমিক রাজনীতি ছাত্র রাজনীতি
সারাদেশ নিরাপত্তা ও অপরাধ বিশ্ব রাজনীতি উন্নয়ন ও সংগঠন অন্যান সংবাদ প্রবাস সাক্ষাতকার বই মতামত ইতিহাস অর্থনীতি

সম্পাদক : আবু জাফর সূর্য

কপিরাইট © 2019 পলিটিক্সবিডি.কম কর্তৃক সর্ব স্বত্ব ® সংরক্ষিত। Developed by eMythMakers.com